মাহমুদ লতিফ

গগনে মেঘজাল পাখীদের নাই দেখা
জলে ডুবে মুছে গেছে দূরে সব রেখা
মাথাল মাথায় কিষাণ একাকী আছে বসে
যদি তটে আবার তরী ফিরে আসে
গগনে দেয়া ডাকে করে আবাহন
এখনি হইবে ঘন বরষন।
ওই দূর বনে ভেজা সমীরণে
পাতাগুলো কেঁপে ওঠে ভারী গরজনে
গগনে পড়েছে যেন কালো আভরণ
এখনি নামিবে ঘন বরষন।
গাভী লয়ে ছুটিছে রাখালেরা বাটি
ভেজা গায়ে সেঁটে আছে পরনের ধটি
আমি ঘরে বসে করি শাওন রসন
এখনি হইল শুরু ঘন বরষন।
সাদা জল এঁকেবেঁকে কোথা চলে যায়
মেঠো পথে কাদা জলে পথিকেরা ধায়
চালেতে জল পরি ওঠেছে রনরন
এখনি নামিবে ফের ঘন বরষন।
দূর নদী ধারে ঘন কাশবন
মেখেছে শরীরে সাদা কালো রং
হৃদয় হইয়া ওঠে অতি আনমন
ঝরিছে অবিরত ঘন বরষন।
আরো দূরে দেখা যায় জল ঘেরা ঘর
ঘোর ধরায় চোখে ফোটার তড়তড়
কদম কুঞ্চিত হীমে করে সিঞ্চন
শাওন এসেছে ফিরে লয়ে বরষন

 

মামিন

যে জন তাড়িয়ে দেয় এতিম
দীনসেই মিথ্যা মনে করে সত্য দ্বীন।
তাঁর হাতে পায় না খাদ্য মিসকীন
ধ্বংস যে তাঁর ইবাদত হে মোমিন।
ইবাদতে যে আছে উদাসীন
সে তো ভেক কমিনা-কমিন।
দুঃখিত হইবে তারা সেদিন
পুনরুত্থিত হইবে তারা যেদিন।
সঞ্চিত বিত্তে আছে বঞ্চিতদের অধিকার
করো না ঋদ্ধ তা দিয়ে নিজ ভান্ডার।
যদি ইবাদতে নিরত হও,
কর বিত্ত দানবিচার দিবসে
পাইবে তুমি যোগ্য প্রতিদান।
কর নামাজ কায়েম ও নেক কাজ
রব পরাইবেন তোমায় আলোর তাজ।

আহ্বান

এসো খোকা এসো খুকু
ঘুমিয়ে থেকো না আর
তাকিয়ে দেখ সম্মুখে তোমার
মুক্ত আলোর দুয়ার।
চলো খোকারা চলো খুকুরা
হও প্রাণ উচ্ছল
জাতি হিসেবে স্বাধীন তোমরা
রেখো দৃঢ় মনোবল।
তোমাদের পিতা তোমাদের মাতা
ছিলো এ দেশেরই সন্তান
স্বাধীন করতে এ দেশ তাঁরা
করেছেন জান কোরবান।
তাঁদেরই আশিস পেয়েছো তোমরা
গড়ে তুলবে এ দেশ
সাজিয়ে দিও বাংলাদেশেরে
প্রাণ করে নিঃশেষ।

বাঘ

শিকারবনে বাঘ মারতে
গেল ভোলা ভুতা
সামনে দেখে মানুষখেকো
পালায় ফেলে জুতা।
কাঁপা হাতে গুলি মারে
মগডালেতে লাগে
ভয় পেয়ে তো বাঘ বেটা
ঊর্ধ্বশ্বাসে ভাগে।
বনের বাঘে ফন্দি আঁটে
করতে হবে কিছু
মটকে দিবো ঘাড় বেটাদের
নিয়ে তাদের পিছু।
গাছের শাখে মাচা বেঁধে
ভোলা ভুতা ভাই
রাতের বেলা ওৎ পেতে রয়
বাঘের দেখা নাই।
একটু দূরে ছাগল বেঁধে
বাঘের আশা করে
এই বুঝি বাঘ বেটা
ছাগলটাকে ধরে।
দু’দিন ধরে বসে থেকে
ক্লান্ত হয়ে যায়
হঠাৎ দেখে বাঘ বেটা
ছাগল নিয়ে ধায়।
পিছু পিছু ছুটলো তারা
বন্দুক টোটা নিয়ে
হঠাৎ বাঘ হাওয়া হল
বনের রাস্তা দিয়ে।
হঠাৎ দেখে পথের বাঁকে
বাঘ রয়েছে খাঁড়া
তাইনা দেখে ভুতা বলে
একটুখানি দাঁড়া।
বাঘের দিকে তাক করে
চালায় গাদা বন্দুক
মানুষখেকো লুটে পড়ে
রক্তে ভাসে বুক।
গ্রামের মানুষ আগে থেকে
ঘিরে ছিল বন
সংগে লয়ে ঢাল তলোয়ার
সাহস ঝা মন।
হৈ হৈ করে নেচে গেয়ে
পুরূষ নারীগণ
ভোলা ভুতার জন্য আনে
মন্ডা শত মন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here